ভুনা খিচুড়ি রান্নার রেসিপি | ভুনা খিচুড়ি রান্নার নিয়ম

21 Aug, 2023

 ভুনা খিচুড়ি রান্নার রেসিপি | ভুনা খিচুড়ি রান্নার নিয়ম vuna khichuri recipe bangladeshi – হ্যালো বন্ধুরা আজকে আমরা জানবো ভুনা খিচুড়ি রান্নার রেসিপি | ভুনা খিচুড়ি রান্নার নিয়ম। আশা করি আমাদের আজকের এই ভুনা খিচুড়ি রান্নার রেসিপি | ভুনা খিচুড়ি রান্নার নিয়ম লেখাটি আপনার জন্য অনেজ উপকারি হবে।

ভুনা খিচুড়ি হল একটি জনপ্রিয় বাংলা খাবার। এটি চাল, ডাল, আলু, পেঁয়াজ, রসুন, মসলা এবং মাংস দিয়ে তৈরি করা হয়। ভুনা খিচুড়ি সাধারণত দুপুরের খাবার হিসেবে পরিবেশন করা হয়।

ভুনা খিচুড়ি রান্নার রেসিপি ভুনা খিচুড়ি রান্নার নিয়ম
ভুনা খিচুড়ি রান্নার রেসিপি  ভুনা খিচুড়ি রান্নার নিয়ম

ভুনা খিচুড়ি তৈরির উপকরণ: vuna khichuri recipe bengali

  1. ১ কাপ বাসমতি চাল
  2. ১/২ কাপ মুগ ডাল
  3. ২টি আলু, কুচি করে কাটা
  4. ১টি পেঁয়াজ, কুচি করে কাটা
  5. ৩-৪ কোয়া রসুন, কুচি করে কাটা
  6. ১/২ চা চামচ হলুদ গুঁড়ো
  7. ১/২ চা চামচ মরিচ গুঁড়ো
  8. ১/২ চা চামচ ধনে গুঁড়ো
  9. ১/২ চা চামচ জিরা গুঁড়ো
  10. ১/২ চা চামচ লবণ
  11. কাঁচা মরিচ
  12. তেল

ভুনা খিচুড়ি তৈরির পদ্ধতি:

১. চাল ও ডাল ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন।

২. একটি কড়াইতে তেল গরম করুন।

৩. পেঁয়াজ কুচি দিন এবং হালকা লাল করে ভাজুন যেনো পুড়্যে না যায়।

৪. রসুন কুচি দিয়ে দিন এবং আরও কিছুক্ষণ ভাজুন।

৫. হলুদ গুঁড়ো, মরিচ গুঁড়ো, ধনে গুঁড়ো, জিরা গুঁড়ো এবং লবণ দিয়ে দিন এবং ভালোভাবে কষিয়ে নিন।

৬. চাল ও ডাল দিয়ে দিন এবং ভালোভাবে নেড়েচেড়ে নিন।

৭. পরিমাণমতো পানি দিয়ে দিন এবং ঢেকে দিন।

৮. মাঝারি আঁচে চুলায় রাখুন এবং চাল এবং ডাল সিদ্ধ না হওয়া পর্যন্ত রান্না করতে থাকুন।

৯. চাল ও ডাল সেদ্ধ হয়ে গেলে চুলা থেকে নামিয়ে নিন।

১০. কাঁচা মরিচ দিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

ভুনা খিচুড়ি তৈরির টিপস:

  1. চাল ও ডাল ভালোভাবে ধুয়ে নিন। এতে খিচুড়ি নরম হবে।
  2. তেল গরম করে পেঁয়াজ কুচি দিয়ে দিন। পেঁয়াজ হালকা লাল করে ভাজুন।
  3. রসুন কুচি দিয়ে আরও কিছুক্ষণ ভাজুন।
  4. হলুদ গুঁড়ো, মরিচ গুঁড়ো, ধনে গুঁড়ো, জিরা গুঁড়ো এবং লবণ দিয়ে ভালোভাবে কষিয়ে নিন।
  5. চাল ও ডাল দিয়ে দিন এবং ভালোভাবে নেড়েচেড়ে নিন।
  6. পরিমাণমতো পানি দিয়ে ঢেকে দিন।
  7. মাঝারি আঁচে চুলায় রাখুন এবং চাল ও ডাল সিদ্ধ না হওয়া পর্যন্ত রান্না কররতে থাকুন।
  8. চাল ও ডাল সেদ্ধ হয়ে গেলে চুলা থেকে নামিয়ে নিন।
  9. কাঁচা মরিচ দিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

ভুনা খিচুড়ি একটি সুস্বাদু এবং পুষ্টিকর খাবার। এটি খেতে যেমন মজাদার, তেমনি স্বাস্থ্যকরও। ভুনা খিচুড়িতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে শর্করা, প্রোটিন, ফাইবার এবং ভিটামিন। এটি একটি আদর্শ খাবার যা সকলের জন্য উপযুক্ত।**

ভুনা খিচুড়ি কোন পরিবেশে খেতে হয়

ভুনা খিচুড়ি কোন পরিবেশে খেতে হয় তা নির্ভর করে আপনার পছন্দের উপর। আপনি চাইলে এটি ঘরে বসে পরিবার এবং বন্ধুদের সাথে খেতে পারেন।

আপনি চাইলে এটি রেস্তোরাঁয় গিয়ে খেতে পারেন। আপনি চাইলে এটি পার্কে বা মাঠে বসে খেতে পারেন।

ভুনা খিচুড়ি যে কোন পরিবেশে খেলেই এর স্বাদ অসাধারণ হবে। তবে, ঘরে বসে পরিবার এবং বন্ধুদের সাথে খেলে এর স্বাদ আরও বেশি উপভোগ করতে পারবেন।

ভুনা খিচুড়ি খাওয়ার কিছু উপকারিতা হল:

ভুনা খিচুড়ি খাওয়ার অনেক উপকারিতা রয়েছে। এটি একটি পুষ্টিকর খাবার যা শক্তি প্রদান করে। ভুনা খিচুড়িতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে শর্করা, প্রোটিন, ফাইবার এবং ভিটামিন। এটি একটি আদর্শ খাবার যা সকলের জন্য উপযুক্ত।

শক্তি প্রদান করে: ভুনা খিচুড়িতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে শর্করা যা শক্তি প্রদান করে। এটি খেলে আপনি সারাদিন সক্রিয় থাকতে পারেন।

প্রোটিন সরবরাহ করে: ভুনা খিচুড়িতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন যা পেশী গঠন এবং মেরামত করে। এটি খেলে আপনি শক্তিশালী এবং ফিট থাকতে পারেন।

ফাইবার সরবরাহ করে: ভুনা খিচুড়িতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার যা কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে। এটি খেলে আপনি হজম ভালো থাকে।

ভিটামিন সরবরাহ করে: ভুনা খিচুড়িতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। এটি খেলে আপনি সুস্থ থাকেন।

যদি আপনি একটি পুষ্টিকর এবং সুস্বাদু খাবার খুঁজছেন, তাহলে ভুনা খিচুড়ি একটি চমৎকার পছন্দ। এটি খেলে আপনি শক্তি পাবেন, পেশী গঠন করবেন, কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করবেন এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তুলবেন।

ভুনা খিচুড়ি খাওয়ার কিছু অপকারিতা

তবে, ভুনা খিচুড়ি খাওয়ার কিছু অপকারিতাও রয়েছে। ভুনা খিচুড়িতে প্রচুর পরিমাণে তেল এবং মসলা থাকে যা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। এটি খেলে ওজন বৃদ্ধি, হৃদরোগ, ডায়াবেটিস এবং অন্যান্য রোগের ঝুঁকি বেড়ে যেতে পারে।

ভুনা খিচুড়ি খাওয়ার ক্ষতিকর দিকগুলি হল:

০১। ওজন বৃদ্ধি: ভুনা খিচুড়িতে প্রচুর পরিমাণে তেল এবং মসলা থাকে যা ওজন বৃদ্ধির কারণ হতে পারে।

০২। হৃদরোগ: ভুনা খিচুড়িতে প্রচুর পরিমাণে তেল এবং মসলা থাকে যা হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়ায়।

০৩। ডায়াবেটিস: ভুনা খিচুড়িতে প্রচুর পরিমাণে চিনি থাকে যা ডায়াবেটিসের ঝুঁকি বাড়ায়।

০৪। অতিরিক্ত লবণ: ভুনা খিচুড়িতে প্রচুর পরিমাণে লবণ থাকে যা উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকি বাড়ায়।

০৫। অতিরিক্ত ক্যালোরি: ভুনা খিচুড়িতে প্রচুর পরিমাণে ক্যালোরি থাকে যা ওজন বৃদ্ধির কারণ হতে পারে।

যদি আপনি ভুনা খিচুড়ি খান, তাহলে এটি পরিমিত পরিমাণে খাওয়া উচিত। এটি খেলে তেল এবং মসলার পরিমাণ কমাতে হবে। এটি খেলে শাকসবজি এবং ফলমূল বেশি খেতে হবে।

আর্টিকেলের শেষকথাঃ ভুনা খিচুড়ি রান্নার রেসিপি | ভুনা খিচুড়ি রান্নার নিয়ম

ভুনা খিচুড়ি রান্নার রেসিপি | ভুনা খিচুড়ি রান্নার নিয়ম – আশা করি বন্ধুরা আমাদের আজকের এই ভুনা খিচুড়ি রান্নার রেসিপি | ভুনা খিচুড়ি রান্নার নিয়ম গুলো লেগেছে। যদি ভালো লাগে তাহলে এখনি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করে দিন।

Rk Raihan

আমি আরকে রায়হান। আমাদের টার্গেট হল ইন্টারনেটকে শেখার জায়গা বানানো। আরকে রায়হান বিশ্বাস করেন যে জ্ঞান শুধুমাত্র শেয়ার করার জন্য তাই কেউ যদি প্রযুক্তি সম্পর্কে কিছু জানে এবং শেয়ার করতে চায় তাহলে আরকে রায়হান পরিবার তাকে সর্বদা স্বাগত জানানো হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *